h-o-r-o-p-p-a-হ-র-প্পা

Posts Tagged ‘প্রশ্ন

chanakya_1

| আর্য-সংস্কৃতি ও বৈদিক-যুগ-০৪ : বৈদিক সাহিত্য- আরণ্যক ও উপনিষদ |
রণদীপম বসু

২.৩ : আরণ্যক ও উপনিষদ

বৈদিক সাহিত্যে ‘ব্রাহ্মণ’ গ্রন্থগুলির শেষাংশে আর একজাতীয় রচনা সংযোজিত দেখা যায়, তার নাম ‘আরণ্যক’ ও ‘উপনিষদ’। এই রচনাগুলি ‘ব্রাহ্মণে’র সঙ্গে এমনভাবে সংযোজিত হয়েছে যে অনেক সময় ‘ব্রাহ্মণ’ ও ‘আরণ্যকে’র মধ্যে সীমারেখা সুস্পষ্ট নয় এবং ‘আরণ্যক’ ও ‘উপনিষদে’র মধ্যেও পার্থক্য প্রায় অস্পষ্ট। তবুও রচনাকালের দিক থেকে ‘আরণ্যক’ ও ‘উপনিষদ’ অবশ্যই পরবর্তী এবং আলোচ্য-বিষয়ের দিক থেকে ‘ব্রাহ্মণে’র সঙ্গে বিশেষ করে ‘উপনিষদে’র পার্থক্য অত্যন্ত মৌলিক। Read the rest of this entry »

Advertisements

532274_499915826689306_1004269330_n.

| বেদান্তদর্শন-ব্রহ্মবেদান্ত-১৭ : বাদরায়ণের দার্শনিক মত- কর্মফল ও পুনর্জন্ম |
রণদীপম বসু

২.২.০৫ : কর্মফল ও পুনর্জন্ম

.
বেদান্তসূত্রে সৃষ্টিকর্তা প্রসঙ্গে বলা হয়েছে যে, জগৎকে সৃষ্টির জন্য ব্রহ্মকেও জীবের কর্মের জন্য অপেক্ষায় থাকতে হয়। কেননা, এই সৃষ্টিজগৎ আপ্তকাম ব্রহ্মের লীলা (ব্রহ্মসূত্র-২/১/৩৩) হলেও, জগৎ-স্রষ্টা হিসেবে ব্রহ্মর পক্ষপাতিত্ব ও নিষ্ঠুরতার আপত্তি উত্থাপিত হয়। বস্তুত জগতে- মানব সমাজে- যে বৈষম্য দেখা যায়, অনেকেই শ্রম করতে করতে অনাহারে মৃতপ্রায় হলেও কেউ কেউ বিনা পরিশ্রমেই অন্যের শ্রমের ফল ভোগ করে বিলাসী জীবন কাটায়।  তাদের দেখেই পুরোহিতবর্গ দেবলোকের কল্পনা করেছেন। আবার মনুষ্য থেকে ক্ষুদ্রতম কীট পর্যন্ত প্রাণিজগতে যে ভীষণ সংহার দেখা যায় যায় তা জগৎ-স্রষ্টা ব্রহ্মকে বড়ই হৃদয়হীন বলে প্রমাণ করে, এবং তার থেকে আত্মরক্ষার জন্যই উপনিষদে পূর্বজন্মকৃত কর্মসিদ্ধান্ত প্রকাশ করা হয়েছে- Read the rest of this entry »

Chanakya-quotes.

| বেদান্তদর্শন-ব্রহ্মবেদান্ত-০৮ : বাদরায়ণের দার্শনিক মত- ব্রহ্মই উপাদান কারণ |
রণদীপম বসু

২.২ : বাদরায়ণের দার্শনিক মত
.
বায়রায়ণ প্রকৃতপক্ষে উপনিষদের বিভিন্ন শ্রুতিকেই অবিসম্বাদিত সত্য হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে উপনিষদের সিদ্ধান্তের ব্যাখ্যা করতে চেয়েছেন এবং উপনিষদের বিভিন্ন ঋষির মতভেদকে দূর করে সর্বসমন্বয় করতে চেয়েছেন। কিন্তু উপনিষদে যেহেতু মতভেদের যথেষ্ট বীজ ছিলো, যার ফলে অনুগামীরা গুরুর সর্বসমন্বয় নীতিকে খণ্ডন করতে উদ্যোগী হওয়ায় বেদান্তের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে কিছু শক্তিশালী মতভেদেরও সৃষ্টি হয়েছিলো। তবু বাদরায়ণের সর্বসমন্বয় তত্ত্বের মধ্যেও তাঁর কিছু সুস্পষ্ট মতামত সিদ্ধান্ত আকারে পরিদৃষ্ট হয়, যাকে বাদরায়ণের ব্রহ্মবাদ বলা যায়। Read the rest of this entry »

chanakya.

| বেদান্তদর্শন-ব্রহ্মবেদান্ত-০৭ : উপনিষদের বিরোধ নিষ্পত্তি |
রণদীপম বসু

২.১ : উপনিষদের বিরোধ নিষ্পত্তি

উপনিষদের ঋষিরা সৃষ্টির মূল কারণ অনুসন্ধানের চেষ্টা করেছেন, কিন্তু সকলেই এক সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারেননি। প্রথমকালের উপনিষদে কেউ কেউ জলকে মূল কারণ বলে মেনেছেন, আবার পরবর্তীকালে উপনিষদে কেউ কেউ সাংখ্যসূত্রকার কপিলের মতের সাথে মিল রেখে প্রধান বা প্রকৃতিকে মূল কারণ বলে মেনেছেন। সেই জন্য বাদরায়ণের নিকট এ ধরনের পরস্পর-বিরোধী বক্তব্যকে দূর করা প্রয়োজন বলে মনে হয়েছে। তাই তিনি ব্রহ্মসূত্রের প্রথম অধ্যায়ের প্রথম পাদের পঞ্চম সূত্র থেকেই যাবতীয় বিরোধ নিষ্পত্তি শুরু করেছিলেন। যেমন- Read the rest of this entry »

images_12.

| বেদান্তদর্শন-ব্রহ্মবেদান্ত-২ : বেদান্তের উৎপত্তি ও উপনিষদীয় ক্রমবিকাশ |
রণদীপম বসু

১.১ : বেদান্তের উৎপত্তি ও উপনিষদীয় ক্রমবিকাশ :
.
বৈদিক চিন্তাধারার সর্বোচ্চ ও পূর্ণ বিকাশ উপনিষদে ঘটলেও, বলা হয়ে থাকে, এই পরিপূর্ণ বিকাশ লাভের বীজ নিহিত রয়েছে ঋকবেদ সংহিতা প্রভৃতি প্রাচীন গ্রন্থে। বেদের চারটি ভাগ, যথা ঋক, সাম, যজু ও অথর্ব। প্রতিটির আবার চারটি অংশ- সংহিতা, ব্রাহ্মণ, আরণ্যক ও উপনিষদ। সংহিতা অংশে বেদের মন্ত্রগুলি রয়েছে। ব্রাহ্মণ অংশে সংহিতায় উক্ত যাগযজ্ঞের বিররণ ও ব্যাখ্যা রয়েছে। আরণ্যকে আছে যজ্ঞ সম্পর্কে রূপক কল্পনা ও প্রতীক উপমার আদেশ। আর উপনিষদে আছে ব্রহ্মজ্ঞানের কথা। Read the rest of this entry »

IMG_1050_1 [1600x1200]

.

| স্বগত প্রশ্নগুলি…|

রণদীপমবসু

‘মাথায় কত প্রশ্ন আসে, দিচ্ছে না কেউ জবাব তার

সবাই বলে মিথ্যেবাদী বকিসনে আর খবরদার !…’

সুকুমার রায়ের এই ছড়াটাকে যতোই শিশুতোষ বলি না কেন, এটা কি আসলে শুধুই শিশুতোষ সমস্যা ? মোটেই তা নয়। আমাদের চারপাশে কিলবিল করা মুখ আর মুখোশের বৈপরিত্যের বিপুল ছড়াছড়িতে ফুঁসে উঠা প্রাত্যহিক অসংখ্য প্রশ্নগুলো যে কতো বেশি যৌক্তিক হয়ে ওঠে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু এগুলোর উত্তর হয়তো আমরা জানি, সবাই জানে। কিন্তু এর জবাব দেবে না কেউ। কেন দেবে না ? সেটাও হয়তো জানি। এটা কি আমাদের ভয়, ভণ্ডামি, না কি অন্য কিছু ? তাকেও মাঝে মাঝে প্রশ্নবিদ্ধ করতে ইচ্ছে হয়।

এই ইচ্ছেটাকেই নাড়াচাড়া করার ইচ্ছেতেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ‘স্বগত প্রশ্ন’ নামে তাৎক্ষণিক ভাব প্রকাশের একটা প্রয়াস শুরু করি। হঠাৎ খেয়াল হলো, এই এলোমেলো প্রয়াসটাকে এখানে নিয়মিত আপডেটসহ একে একে সাজিয়ে রাখি না হয়। একসময় তা-ই যদি সময়ের নিজস্ব চিৎকার হিসেবে উৎকীর্ণ হয়ে থাকে, মন্দ কী !! Read the rest of this entry »

ট্যাগ সমুহঃ ,
 
| ঘড়ায়-ভরা উৎবচন…|২৭১-২৮০|
রণদীপম বসু

(২৭১)
আত্মাহুতির পূর্বমুহূর্তে মানুষ ধীর স্থির এবং অস্বাভাবিক শান্ত হয়ে যায়;
তখন আর তাঁর মধ্যে সিদ্ধান্তহীনতার অস্থিরতা থাকে না।
 .
(২৭২)
অনন্ত প্রশ্নমালার সংহত ও সংক্ষিপ্ত রূপটির নাম ‘কেন’।
মানুষ যতক্ষণ নিষ্কলুষ শৈশবকে লালন করে,
এই প্রশ্নপ্রবাহে ততক্ষণ সে সহজাত নির্দ্বিধ হয়।
 .
(২৭৩)
সাম্প্রদায়িক দৃষ্টিভঙ্গির প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে-
তাদের পরিচয়ে আগে গোষ্ঠি বা সম্প্রদায়, পরে মানুষ।
সাম্প্রদায়িকতায় শুরুতেই দৃষ্টি খণ্ডিত হয়ে যায় বলে
গোষ্ঠির বাইরে মানুষ পরিচয়টাই তাদের কাছে অর্থহীন।

রণদীপম বসু


‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই। তা প্রকাশ করতে যদি লজ্জাবোধ হয়, তবে সে ধরনের চিন্তা না করাই বোধ হয় ভাল।...’
.
.
.
(C) Ranadipam Basu

Blog Stats

  • 333,349 hits

Enter your email address to subscribe to this blog and receive notifications of new posts by email.

Join 112 other followers

Follow h-o-r-o-p-p-a-হ-র-প্পা on WordPress.com

কৃতকর্ম

সিঁড়িঘর

দিনপঞ্জি

নভেম্বর 2018
রবি সোম বুধ বৃহ. শু. শনি
« সেপ্টে.    
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  

Bangladesh Genocide

1971 Bangladesh Genocide Archive

War Crimes Strategy Forum

লাইভ ট্রাফিক

ক’জন দেখছেন ?

হরপ্পা কাউন্টার

Add to Technorati Favorites

গুগল-সূচক

টুইট

Protected by Copyscape Web Plagiarism Check

Flickr Photos

Advertisements