h-o-r-o-p-p-a-হ-র-প্পা

Posts Tagged ‘পদ্ম

breath

তন্ত্র-সাধনা-১৩ : তন্ত্রে ভূতশুদ্ধি ও ষট্চক্র-ভেদ
রণদীপম বসু

শাস্ত্রানুসারে উপাসনায় পাঁচপ্রকারের শুদ্ধি বিশেষভাবে করণীয়– আত্মশুদ্ধি, স্থানশুদ্ধি, মন্ত্রশুদ্ধি, দ্রব্যশুদ্ধি ও দেহশুদ্ধি। এসব শুদ্ধি না করলে পূজা-অর্চনাদি নিষ্ফল হয়ে পড়ে। কুলার্ণব-তন্ত্রে বলা হয়েছে–

আত্মা তু ভূতসংশুদ্ধিপ্রাণায়ামাদিভিঃ প্রিয়ে।
ষড়ঙ্গাদ্যখিলন্যাসৈর্দেহশুদ্ধিরিহোদিতা।
দেহশুদ্ধিং বিধায়েথং ততো বৈ স্থাপয়েদসূন্ ।।
অর্থাৎ : ভূতশুদ্ধি, প্রাণায়াম প্রভৃতি দ্বারা আত্মশুদ্ধি হইয়া থাকে। অর্থাৎ তত্ত্বজ্ঞানের আবরক মলের অপসৃতি ঘটে। করন্যাস, অঙ্গন্যাস প্রভৃতি দেহশুদ্ধির হেতু। দেহশুদ্ধির পরে সাধক নিজের অভিনব বিশুদ্ধ প্রাণকে প্রতিষ্ঠিত করিবেন।

Read the rest of this entry »

Advertisements

10301598_822840851071012_5546513123171155425_n

| প্রাক্-বৈদিক সিন্ধু-যুগ-০৭ : প্রকৃতি উপাসনা |
রণদীপম বসু

প্রকৃতি-উপাসনা :

বেদ-পূর্ব সিন্ধু-ধর্ম মাতৃপ্রধান এবং বৈদিক ধর্ম যে পুরুষ-প্রধান, এ বিষয়ে বিদ্বান-পণ্ডিতদের মধ্যে কোন দ্বিমত নেই। কিন্তু ভারতীয় সংস্কৃতির আলোচনায় অত্যন্ত কৌতুহলোদ্দীপক বিষয় হলো, পরবর্তীকালের ভারতবর্ষীয় ধর্মে অন্তত সাধারণ জনগোষ্ঠির মধ্যে ব্যাপকভাবে প্রচলিত ধর্মবিশ্বাসের ক্ষেত্রে ঋগ্বেদের প্রাচীন পুরুষ-দেবতাদের বিশেষ কোন পরিচয়ই পাওয়া যায় না। অন্যদিকে উত্তরকালের এই ধর্মবিশ্বাসের প্রধানতম উপাদান হলো মাতৃ-পূজা- তা কি ওই বেদ-পূর্ব সিন্ধু-ধর্মেরই রেশ? এ ক্ষেত্রে সিন্ধু-যুগে এই ধর্মবিশ্বাস প্রচলিত ছিলো বলে এর ব্যাখ্যা-সন্ধানে যেমন সিন্ধু-প্রত্নতত্ত্ব-লব্ধ স্মারকগুলির উপর নির্ভর করতে হবে, তেমনি পরবর্তীকালেও এই ধর্মবিশ্বাস বহুলাংশে অক্ষুণ্ন থেকেছে এই অনুমান-জন্য পরবর্তীকালের লিখিত সাহিত্য হয়তো ওই স্মারকগুলির উপর গুরুত্বপূর্ণ আলোকপাত করতে পারে। অর্থাৎ ওই শাক্ত-ধর্ম বা মাতৃ-উপাসনার ব্যাখ্যা সন্ধানে একাধারে প্রত্নতত্ত্বমূলক ও সাহিত্যমূলক দ্বিবিধ তথ্যের উপর নির্ভর করা যেতে পারে। Read the rest of this entry »

448044

| স্বপ্নদিঘি |

-রণদীপম বসু

.
বুকের ভেতর দুলছে আমার     কোন্ সে দিঘির ঢেউ,
কেউ কি জানো
মায়ের বারণ না মেনেও    ঝাঁপ দিলো কি কেউ ?
ঝাঁপ দিয়েছে কোন‌ খোকারা
ডুব সাঁতারে দিনটি সারা
সরল জলের তরল বুকে     এধার ওধার করে
ঝুপুর ঝাপুর ভাঙছে সে জল    দিঘির জলল ঘরে।

ভাঙছে জলের স্বচ্ছ কিনার
ভাঙছে কি তার    মাছরাঙা এ মন ?
আকাশ মাখায় পাখির ছায়া    কাঁপায় সবুজ বন।
স্বপ্নরঙা মাছের চোখে    মিটিমিটি তারা
আকাশও কি ঝাপ দিয়েছে ?
ইচ্ছেগুলো মুক্ত স্বাধীন     হয়ে পাগলপারা।

কেউ জানে না কেউ জানে না
বুকটা হলো জল-ঠিকানা     কখন কেমন করে
কার ছোঁয়াতে দিঘির বুকে     স্বপ্ন আবীর ঝরে ?
বুকের ভিতর দুলছে দিঘি      দুলছে দিঘির জলে
কেউ কি জানো
মেঘলা হাতে রোদ গুলিয়ে
কে দিলো তার জল ঘুলিয়ে
কে খুঁজে তল হাত বাড়িয়ে      নাম খোঁজারই ছলে
কোন আঁধারের পর্দা ছিঁড়ে      আলোর জোনাক জ্বলে!

দুলছে দিঘি বুকের ভিতর

অথৈ কথার    স্বপ্ন ধোয়া জলে
কাজলাও নয় পদ্মও নয়
নাম হারা এই বুকের দিঘি    থাকুক বুকের তলে।

(২৭/০৪/২০০৭)


রণদীপম বসু


‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই। তা প্রকাশ করতে যদি লজ্জাবোধ হয়, তবে সে ধরনের চিন্তা না করাই বোধ হয় ভাল।...’
.
.
.
(C) Ranadipam Basu

Blog Stats

  • 278,348 hits

Enter your email address to subscribe to this blog and receive notifications of new posts by email.

Join 108 other followers

Follow h-o-r-o-p-p-a-হ-র-প্পা on WordPress.com

কৃতকর্ম

সিঁড়িঘর

দিনপঞ্জি

জুন 2018
রবি সোম বুধ বৃহ. শু. শনি
« মার্চ    
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930

Bangladesh Genocide

1971 Bangladesh Genocide Archive

War Crimes Strategy Forum

লাইভ ট্রাফিক

ক’জন দেখছেন ?

bob-contest

Blogbox
Average rating:

Create your own Blogbox!

হরপ্পা কাউন্টার

Add to Technorati Favorites

গুগল-সূচক

টুইট

Protected by Copyscape Web Plagiarism Check
Advertisements