h-o-r-o-p-p-a-হ-র-প্পা

| দুই-মেগাপিক্সেল…| রোড-টু-সিলেট-০৩ |

Posted on: 19/12/2009



| দুই-মেগাপিক্সেল…| রোড-টু-সিলেট-০৩ |
– রণদীপম বসু


রোড-টু-সিলেট: পর্ব-[০১][০২][*][০৪]
বিকেলে একটা ঘরোয়া অনুষ্ঠানে যোগদান করতেই গতরাতে (০৪-১২-২০০৯) সিলেট পৌঁছা। রাতেই আবার ফিরতে হবে ঢাকায়। সকালে ঘুম ভেঙেই ভাবলাম তারুণ্যের বহু স্মৃতিমাখানো এই সিলেট শহরটায় একটা ছোটখাটো চক্কর দিয়ে আসি। বেরোতে বেরোতে এগারোটা পেরিয়ে গেছে। পকেটে দুই-মেগাপিক্সেল। প্রকৃত ছবিয়ালদের জন্য গোটা সিলেট এক বিস্ময়কর রত্নভাণ্ডার। আমি ছবিয়াল নই, এবং বাউণ্ডুলে আমার হাতে মাত্র তিনটা ঘণ্টা সর্বোচ্চ বরাদ্দ। কিন্তু যেখানেই দুই-মেগাপিক্সেল তাক করি, সূর্য হঠাৎ তার জ্বলন্ত দৃষ্টি নিয়ে ঠিক মুখোমুখি হয়ে যায়। ক্ষুধার্ত জিহ্বায় মশকারির ছাই আর কি !

২০.
বিভাগীয় শহর সিলেটের অন্যতম ল্যান্ডমার্ক হচ্ছে ঐতিহ্যবাহী কীন-ব্রীজ। সিলেটের কবি দিলওয়ার-এর একটা কাব্যগ্রন্থের নাম সেই ছাত্রজীবনে আমাদের মুখে মুখে ফিরতো- ‘কীন ব্রীজে সুর্যোদয়’। শহরটিকে দুটো অসম ভাগে ভাগ করে রাখা ভাবুক নদী সুরমা’র এপার-ওপার এক-করে দেয়া আরো নতুন ব্রীজ তৈরি হলেও সিলেটবাসীর জন্য এই বয়োবৃদ্ধ কীন-ব্রীজ ছাড়া সিলেট শহর কল্পনা কি স্বপ্নেও সম্ভব !
.


২১.
কীন-ব্রীজের গোড়ায় সুরমার পাড় ঘেষে তৈরি ধাতব এই শিল্পকর্মটির নাম ‘ড্যান্সিং সার্কল’। এটা ছাড়া আর কোন শিল্পকর্ম বা সড়ক-ভাস্কর্য সিলেট নগরীর কোথাও নির্মিত হয়েছে কিনা আমার জানা নেই।
.

২২.
সিলেট সার্কিট হাউস। কীন-ব্রীজের পাশে সুরমা’র পাড়ে এই সুরম্য ভবনটি সত্যিই দৃষ্টিনন্দন।
.


২৩.
কীন-ব্রীজের উপর থেকে দুই-মেগাপিক্সেলের চোখে সিলেট সার্কিট হাউস এলাকাটাকে দেখতে মন্দ লাগছে না !
.


২৪.
কীন-ব্রীজের বুক থেকে শিতের নিরিবিলি নদী সুরমা’র চলে যাওয়ার দৃশ্যটায় চোখ রাখলে ভেতরে কেমন একটা উদাস উদাস ভাব চলে আসে !
.


২৫.
কীন-ব্রীজের যে-পাশে সার্কিট হাউস, তার অপর-পাশে সিলেটের আরেকটা ছোট্ট ও ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা হলো ‘আলী আমজাদের ঘড়ি’। সংস্কার-কাজ চলছে বলে এ-মুহূর্তে মুল ঘড়ির অবস্থানটিতে এপাশ-ওপাশ একটা সুড়ঙ্গই চোখে পড়ে, ঘড়িটি নেই।
.


২৬-২৭.
আলী আমজাদের ঘড়ি ছুঁয়ে সুরমার পাড় ঘেষে চলে যাওয়া রাস্তা এবং সংলগ্ন পার্ক-মতন জায়গাটা কীন-ব্রীজের উপর থেকে মন-কেমন-করা ভালো-লাগায় আটকে থাকে। ঘড়ি-স্থাপনার পাশেই রয়েছে সিলেটের আরেক ঐতিহ্য ‘সারদা হল’।
.
.


২৮-২৯.
‘ড্যান্সিং সার্কেল’-এর ফাঁক-ফোকড় দিয়ে দৃষ্টি চারিয়ে দিলেও খুব একটা মন্দ লাগেনা দেখি !
.
.


৩০.
কিছু কিছু জায়গার চলমান পরিবর্তনগুলোকে পরিবর্তন বলে মনে হতে চায় না। হয়তো পাশাপাশি পুরনো স্থাপনাগুলো থেকে যাওয়ার জন্যেই। যেমন সিলেটের জিন্দাবাজার। দীর্ঘ নিঃশ্বাস টেনে পুরনো ঘ্রাণটাকে অনুভব করার চেষ্টা করি।
.


৩১.
সিলেট চৌহাট্টার ঠিক আগেই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার। বিভাগীয় শররের ক্রমপ্রসারমান একটা বিপুল জনগোষ্ঠির আগ্রহের তুলনায় শহীদ মিনার এলাকার এতো ছোট্ট ও স্বল্প-পরিসরতা বিশাল এক অতৃপ্তিকেই ধারণ করে রাখে।
.


৩২.
শহীদ মিনারের ঠিক লাগোয়া পেছনের পল্লবিত সবুজ গাছটার দিকে অনেকক্ষণ চেয়ে থাকতে ইচ্ছে করে। বাংলাদেশের কী চমৎকার একটা সবুজ প্রাকৃতিক মানচিত্র হয়ে সেটে আছে মিনারের গায় !
.


৩৩.
সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের স্থাপনায় ছায়াঘন সবুজের আধিক্য চোখে ও মনে একটা সুশীতল অনুভূতি বুলিয়ে যায়।
.


৩৪.
সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রতিষ্ঠা ফলক।
.


৩৫.
শহীদ মিনারের সামনে রাস্তার অপর পার্শ্বে অবস্থিত সিলেট চা বোর্ড ভবন।
.


৩৬.
রিকাবী বাজার চৌরাস্তায় সড়ক-দ্বীপ, পোস্টারের কবলে নাজেহাল। পোস্টার-সন্ত্রাসীরা বুঝে না শিল্পের কদর।
.


৩৭.
রিকাবী বাজার চৌরাস্তার সড়ক-দ্বীপে স্থাপিত শৈল্পিক-ফলক, যেখানে বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘বিদ্রোহী’ কবিতার আংশিক উৎকীর্ণ রয়েছে।
.


৩৮.
রিকাবী বাজারে অবস্থিত সিলেট স্টেডিয়াম সংলগ্ন ক্রীড়া ভবন কিংবা স্টেডিয়ামের প্রধান প্রবেশপথ।
.


৩৯.
সিলেট ক্রীড়া ভবনের গেটের পাশেই একটা মাজার। মাজারের পাশে সিলেট অডিটরিয়ামের একাংশ দেখা যায়। অলি-আউলিয়াদের চরণ-স্পর্শে ধন্য সিলেটের গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে এরকম মাজার থাকলেও কোথাও কি কোন শিল্প-কর্ম বা সড়ক-ভাস্কর্য চোখে পড়ে কারো ?
.


৪০.
শহীদ ডাঃ সামসুদ্দিন আহমদ ছাত্রাবাস ঠিক তেমনি আছে, বাউন্ডারি-ওয়ালটি বাদে। বহু বছর আগে যেমনটি দেখেছি।
.


৪১.
শহীদ ডাঃ সামসুদ্দিন আহমদ ছাত্রাবাসের সামনে রাস্তার ঠিক উল্টোপার্শ্বের স্মৃতিটা কেমন পাল্টে গেছে। সম্ভবত এখানেই একদিন অন্যরকম এক ‘প্রান্তিক’ ছিলো। জায়গাটা কি স্মৃতি-ভারাক্রান্ত !
.

৪২.
সিলেট পুলিশ লাইন, রিকাবী বাজার।
.


৪৩.
সিলেট মদন মোহন কলেজ। আগের দেখা স্মৃতির সাথে এর বহিরঙ্গ আরো উজ্জ্বল ও আকর্ষণীয় হয়ে ওঠেছে।
.

(চলমান…)

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

রণদীপম বসু


‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই। তা প্রকাশ করতে যদি লজ্জাবোধ হয়, তবে সে ধরনের চিন্তা না করাই বোধ হয় ভাল।...’
.
.
.
(C) Ranadipam Basu

Blog Stats

  • 213,700 hits

Enter your email address to subscribe to this blog and receive notifications of new posts by email.

Join 88 other followers

Follow h-o-r-o-p-p-a-হ-র-প্পা on WordPress.com

কৃতকর্ম

সিঁড়িঘর

দিনপঞ্জি

ডিসেম্বর 2009
রবি সোম বুধ বৃহ. শু. শনি
« নভে.   জানু. »
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  

Bangladesh Genocide

1971 Bangladesh Genocide Archive

War Crimes Strategy Forum

লাইভ ট্রাফিক

ক’জন দেখছেন ?

bob-contest

Blogbox
Average rating:

Create your own Blogbox!

হরপ্পা কাউন্টার

Add to Technorati Favorites

গুগল-সূচক

টুইট

Protected by Copyscape Web Plagiarism Check
%d bloggers like this: