h-o-r-o-p-p-a-হ-র-প্পা

| মুজাহিদকে অপমান !

Posted on: 29/08/2009


bangladesh_news_10152008_000007_01_mujahid_sayedi

মুজাহিদকে অপমান !
রণদীপম বসু

.

(১৮ অক্টোবর ২০০৮)
চ্যানের এনটিভি’র রাত সাড়ে দশটার নিউজে জানা গেলো যে পুলিশ জামায়াত নেতা আলী আহসান মুজাহিদের উত্তরার বাসায় তল্লাশি চালিয়েছে। কিন্তু কেন চালিয়েছে তা আমার বোধগম্য হলো না। মোটাবুদ্ধির কারণে এরকম সমস্যা আমার মাঝে মধ্যেই ঘটে থাকে। বোধশক্তি থমকে যায়।

উচ্চ আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর পলাতক আসামী (!) মুজাহিদ যখন সভাসমিতিতে বক্তব্য রাখেন, সবাই দেখে, পুলিশ দেখে না ! প্রধান উপদেষ্টার সাথে বেশ আড়ম্বরেই রাষ্ট্রিয় গুরুত্বপূর্ণ (?) বৈঠক করে, পুলিশ দেখে না ! গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক বলছি এজন্যই যে, রাষ্ট্রিয় মারাত্মক গুরুত্বপূর্ণ কোন সমস্যা না হলে একজন সরকার প্রধান কোন পলাতক আসামীর সাথে বৈঠক করবে এটা আমি বিশ্বাস করি না। কিন্তু সমস্যাটা নিশ্চয়ই মারাত্মক তো বটেই, খুবই গোপনীয়ও হয়তো। নইলে দুর্নীতি দমনেচ্ছুক দায়িত্বশীল সরকার প্রধান নিশ্চয়ই তা জাতিকে অবগত করাতেন। আর আমরা এসব উচ্চপর্যায়ের রাষ্ট্রনীতির কৌশল না বুঝেই পুলিশ কেন দেখে না এটা নিয়ে সবাই হৈ চৈ বাঁধিয়ে দিয়েছি। আমরা বুঝতে চাই না যে, কেউ যদি দেখতে অক্ষম হয় তাকে দোষ দিয়ে লাভ আছে ? দরকার হচ্ছে প্রয়োজনীয় চিকিৎসার। তবে তারও আগে বুঝতে হবে পুলিশ কি দেখে না ? না কি দেখবে না, কোনটা ? সমস্যা হলো মোটা বুদ্ধির লোকেরা রাস্তার মাঝখান দিয়ে সোজা হাঁটে। তাই এতো ঘোরপ্যাঁচে না গিয়ে সরলভাবে বুঝে ফেলে, সরকার যখন দেখে না, পুলিশও দেখে না। পুলিশ তো সরকারেরই দক্ষিণ হস্ত। তার কি আলাদা কোন সত্ত্বা আছে নাকি ? যখন সরকার দেখতে শুরু করবে, পুলিশও তখন দেখতে পাবে।
.

কিন্তু আমি এখনো বুঝতেই পারছি না পুলিশ কেন হঠাৎ মুজাহিদের বাসায় তল্লাশি করতে গেলো ! হতে পারে চ্যানেলে একটা ভূয়া সংবাদ দিয়েছে, নয়তো পুলিশের কোন তৃতীয় নয়ন গজিয়েছে যা দিয়ে নিজেরা দেখে না, অন্যকে দেখায়। কেননা সরকার যে দেখতে পায় বা দেখতে চায় এর কোন আলামত এখনো তো স্পষ্ট হয় নি কোথাও। বিমান বন্দরের ত্রিমোহনায় ‘খাঁচার ভিতর অচিন পাখি’ -কে লালনের নাম ধরে মধ্যযুগীয় মোল্লারা যখন বাঙালির হাজার বছরের লোকায়ত সংস্কৃতির নাড়ি ধরে টান দিলো, আমাদের সরকার যে বাঙালির সেই ঐতিহ্যের উত্তরাধিকারের সরকার তা বিশ্বাস করানোর মতো কোন ব্যবস্থা নিয়েছে কি ? দেলোয়ার হোসেন সাঈদী যখন দেশের অমুসলিমদের উপাসনামূর্তি ছাড়া বাকি সব মূর্তি ভাঙার হুমকী দেয়, সরকার তখনো কোন ব্যবস্থা নিয়েছে কি ? আর উপাসনামূর্তি বাদ দিলে বাকি যা থাকে তা তো প্রায় সবই রাষ্ট্রেরই। নইলে কোথাও কোন কষ্টিপাথরের মূর্তি পাওয়া গেলে প্রত্ন-সম্পদ হিসেবে রাষ্ট্র তা হস্তগত করে কেন ?
.

সাঈদীর বক্তব্য যখন ওইসব মূর্তি অপসারণকারীর বক্তব্যের প্রত্যক্ষ প্রতিনিধিত্ব করলো, তখন আর বুঝতে বাকি থাকলো কি যে এই জঘন্য কাজটা পরোক্ষে ভিন্ন নাম ধরে মূলত মৌলবাদী জামায়াতে ইসলামীরই কাজ ? প্রধান উপদেষ্টার সাথে মুজাহিদের বৈঠকের পর পর দেশ জুড়ে যখন গুঞ্জন উঠলো, সাথে সাথে ঘটলো মৃণাল হকের ভাস্কর্য অপসারণ ! একটা দিয়ে আরেকটা আড়াল করা ? তাও আবার বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রহসনমূলক বক্তব্য শুনে একটা রামছাগলেরও হাসি পাবার কথা। বলে কিনা, মূল ভাস্কর্যের নমূনা অনুযায়ী হয় নি বলেই এরাই এর অপসারণের ব্যবস্থা নিয়েছে ! জাতির সংস্কৃতির ধারক বাহক লেখক কবি শিল্পী ভাস্কররা দুর্বলতম দুর্ভাগা বলেই কি তাঁদেরকে নিয়ে এমন রাষ্ট্রিয় ছিনিমিনি খেলা ? মোটাবুদ্ধিতে আবারো বুঝে যাই, উপদেষ্টার বৈঠকখানা থেকে বিমান বন্দর হয়ে মুজাহিদের বাসা পর্যন্ত যে নাটক চলছে তাতে সরকারি সায় তো রয়েছেই, হয়তো সরকারি ইন্দনও রয়েছে। আর তা-ই যদি হয়ে থাকে তবে আর রাখঢাকের কিছু রইলো না যে, জামায়াতে ইসলামীর তত্ত্বাবধানে পরিচালিত একটা মৌলবাদী সরকার মাথায় নিয়েই আমরা একটা নিরপেক্ষ (!) গণতান্ত্রিক নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি, আদৌ যদি সে নির্বাচন হয়। মৌন মিছিল করার দায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রেফতারকৃত সেই ছাত্র-শিকদের নির্যাতিত হওয়ার স্মৃতি আসলে কখনোই ভুলা যাবে না।

কিন্তু এবারও আমার মোটা মাথায় এটা ধরছে না যে, আইনের প্রতি এতো বিশ্বস্ত আল্লাওয়ালা ব্যক্তি মুজাহিদ পলাতক হবেন কেন ? তিনি কি চোর ছ্যাচ্চর নাকি ! এমন সৎ আদর্শ ও পবিত্র মুবারকধারী জামায়াত শীর্ষ নেতা মুজাহিদ কি অন্যান্য দলের নাফরমান পাতি নেতাদের থেকেও খারাপ হয়ে গেলেন যে, ওরা কেউ গ্রেফতারের আগে পালালো না, আর মুজাহিদ ভয় পেয়ে পালিয়ে থাকবেন ! আর পুলিশ তাকে খুঁজে খুঁজে হয়রান হয়ে যাবে !

উঁহু, আমি বিশ্বাস করলাম না। এটা নিশ্চয়ই একাত্তরের রাজাকার মিথে প্রভাবিত কোন নাফরমান পুলিশ সদস্য কর্তৃক মুজাহিদকে পলাতক আখ্যা দিয়ে তাঁকে সুপরিকল্পিত অপমান করা হচ্ছে ! আমি এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। এবং আমি এও আশা করি যে মুজাহিদ অন্তত চোর ছ্যাচ্চর থেকেও নীচে নেমে যান নি।
(১৮/১০/২০০৮)
.
[mukto-mona]
[khabor.com]
[sachalayatan]
[sa7rong]

Advertisements
ট্যাগ সমুহঃ ,

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s

রণদীপম বসু


‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই। তা প্রকাশ করতে যদি লজ্জাবোধ হয়, তবে সে ধরনের চিন্তা না করাই বোধ হয় ভাল।...’
.
.
.
(C) Ranadipam Basu

Blog Stats

  • 439,401 hits

Enter your email address to subscribe to this blog and receive notifications of new posts by email.

Join 124 other followers

Follow h-o-r-o-p-p-a-হ-র-প্পা on WordPress.com

কৃতকর্ম

সিঁড়িঘর

দিনপঞ্জি

অগাষ্ট 2009
রবি সোম বুধ বৃহ. শু. শনি
    সেপ্টে. »
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  

Bangladesh Genocide

1971 Bangladesh Genocide Archive

War Crimes Strategy Forum

লাইভ ট্রাফিক

ক’জন দেখছেন ?

হরপ্পা কাউন্টার

Add to Technorati Favorites

গুগল-সূচক

টুইট

  • গ্রন্থ : ইয়োগা (স্বাস্থ্য ও যৌগিক ব্যায়াম, রোদেলা প্রকাশনী, ফেব্রুয়ারি-২০১৯)... https://t.co/SpIL5tcLTi 4 months ago
  • ছবি : একান্নবর্তী সংসারের নতুন-পুরনো সদস্যরা... https://t.co/7HJBdUekkd 1 year ago
  • গ্রন্থ : টিপলু (কিশোর গল্প, দ্যু প্রকাশন, ফেব্রুয়ারি-২০১৮) https://t.co/zID65r8q97 1 year ago
  • গ্রন্থ : ছড়া-কবিতার ঝুল-বারান্দায় (ছোট কবিতা প্রকাশন, জানুয়ারি-২০১৮) https://t.co/Goy6tNtWr0 1 year ago
  • গ্রন্থ : নাস্তিক্য ও বিবিধ প্রসঙ্গ (রোদেলা প্রকাশনী, ফেব্রুয়ারি-২০১৮) https://t.co/ECvpDneHSe 1 year ago
Protected by Copyscape Web Plagiarism Check

Flickr Photos

Advertisements
%d bloggers like this: